ADS বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: [email protected]

আচমকা বিদায়, বোর্ড সভাপতির পদ থেকে সরতে হচ্ছে নাকি নিজেই সরে যাচ্ছেন সৌরভ? পিছনে এই কারণ

আচমকা বিদায়, বোর্ড সভাপতির পদ থেকে সরতে হচ্ছে নাকি নিজেই সরে যাচ্ছেন সৌরভ? পিছনে এই কারণ

[ad_1]

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে ইতিমধ্যেই নতুন সভাপতি আসতে চলেছে। কারণ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিদায় আপাতত সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করা হচ্ছে।

বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন পেস বোলার রজার বিনিকে মহারাজের ছেড়ে যাওয়া সিংহাসনে বসানো হতে চলেছে। ১৯৮৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে এই রজার বিনিই সবথেকে বেশি উইকেট শিকার করেছিলেন।

সালটা ছিল ২০১৯। বিশ্বের সবথেকে ধনী ক্রিকেট বোর্ডের দায়িত্ব গ্রহণ করেন সৌরভ। কথা দিয়েছিলেন, আগামীদিনে তিনি ভারতীয় ক্রিকেটের উন্নতির স্বার্থে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন করবেন।

একজন ক্রিকেটার হিসেবে ভারতকে তিনি যে সাফল্য এনে দিয়েছিলেন, তারপর ‘প্রিন্স অফ ক্যালকাটা’র থেকে গোটা দেশের ক্রিকেট সমর্থকদের প্রত্যাশা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল।

আর সেকারণেই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সর্বোচ্চ পদে তাঁকে সকলেই স্বাগত জানিয়েছিলেন এবং আশা করেছিলেন দেশের ক্রিকেটে হয়ত নজির গড়ে আমূল পরিবর্তন তিনি এনে দিতে পারবেন।

তবে অনেকেই এখন ‘প্রশাসক’ সৌরভের এই তিন বছরের মেয়াদে একাধিক খুঁত বের করার চেষ্টা করছেন। কেউ কেউ তো আবার একথাও বলতে শুরু করেছেন যে সৌরভ নাকি নিজের দোষেই সকলের বিরাগভাজন হয়েছেন।

বিশেষ করে সৌরভ বিসিসিআই সভাপতি থাকাকালীন বিরাট কোহলির হাত থেকে যেভাবে ভারতীয় ক্রিকেট দলের নেতৃত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে, সেটা কেউই ভালোভাবে মেনে নিতে পারেননি।

এমনকী ভারতীয় ক্রিকেট দলের এই প্রাক্তন অধিনায়ক গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাওয়ার আগে সৌরভের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে সমালোচনাও করেছিলেন।

পাশাপাশি সৌরভের বিরুদ্ধে এই অভিযোগও রয়েছে যে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতির যে ক্ষমতা থাকে, সেই ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন তিনি। আর সেইসঙ্গে টিম ইন্ডিয়ার দল নির্বাচনের বৈঠকে কার্যত জোর করেই থাকতেন তিনি।

তবে সুপ্রিম কোর্ট যখন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে সংবিধান সংশোধনের একটা সুযোগ দিয়েছিল, তখন অনেকেই আশা করেছিলেন যে সৌরভ হয়ত আরও একটি টার্ম বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবেই রাজত্ব করবেন।

কিন্তু, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষপদ থেকে মহারাজের আচমকা বিদায়, সকলকে একটু হলেও চমকে দিয়েছে। আর তারপর থেকেই সকলে আন্দাজ করার চেষ্টা করছেন যে ঠিক কোন কারণে সৌরভকে বিসিসিআইয়ের সভাপতির পদ থেকে সরে যেতে হচ্ছে।

ক্রিকবাজে প্রকাশিত একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে যে নয়াদিল্লিতে আয়োজিত বোর্ডের একটি বৈঠকে সৌরভের পারফরম্যান্স নিয়ে প্রচন্ড সমালোচনা করা হয়।

ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে যে বর্তমান বিসিসিআই প্রেসিডেন্টকে ওই বৈঠকে নাকি আমন্ত্রণ পর্যন্ত জানানো হয়নি। ফলে তাঁর নাম যে ICC-র শীর্ষপদের জন্য পাঠানো হবে, তেমন আশা আপাতত না করাই ভালো।

ক্রিকবাজের রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় যে এই বৈঠকে উপস্থিত হননি, এতে এত আশ্চর্য্য হওয়ার কিছু হয়নি। কারণ সবকিছু তো আগে থেকেই ঠিক হয়ে রয়েছে যে বিসিসিআই সভাপতি হিসেবে তিনি আর কাজ করবেন না।

তবে সম্প্রতি দিল্লির বৈঠকে তাঁর কার্যকালের প্রবল সমালোচনা করে কফিনের শেষ পেরেকটি পুঁতে দেওয়া হল। এবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলেন জন্য তাঁর নাম মনোনয়ন করা হয় কি না, সেটাই আপাতত দেখার। তবে এই পরিস্থিতিতে সেই সম্ভাবনা কতদুর এগোবে, সেটাই আপাতত দেখার।’

[ad_2]

Leave a Reply