ADS বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: [email protected]

এশিয়া কাপে এই ৩ কারণে ভারতকে হারিয়ে দিবে পাকিস্তান!

এশিয়া কাপে এই ৩ কারণে ভারতকে হারিয়ে দিবে পাকিস্তান!

[ad_1]

২৭ আগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে এশিয়া কাপ ২০২২। ২৮ আগস্ট দুবাইতে বহুল প্রতীক্ষিত ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। চির প্রতিদ্বন্দ্বী দুই দলকে গ্রুপ ‘এ’-তে রাখা হয়েছে। ‘বি ‘গ্রুপে রয়েছে আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা।

এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের প্রধান জয় শাহ মঙ্গলবার, ২ আগস্ট তার অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে ইভেন্টের সূচী প্রকাশ করেন। ভারত টুর্নামেন্টের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন।

২০১৮ সালের এশিয়া কাপের আসরে ফাইনালে বাংলাদেশকে হারিয়ে ভারত ট্রফি জিতেছিল। এশিয়া কাপের এখনও পর্যন্ত মোট সাতবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ভারত। শ্রীলঙ্কা জিতেছে ৫বার আর পাকিস্তান জিতেছে দুবার। প্রতিটি গ্রুপ থেকে দুটি দল সুপার ৪ পর্বে উঠবে।

এই কারণে টুর্নামেন্টে ভারত ও পাকিস্তানের একাধিকবার মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ভারত ও পাকিস্তান সর্বশেষ ২০২১ সালের আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলেছিল।

সেই ম্যাচে ভারতকে ১০ উইকেটে হারিয়েছিল পাকিস্তান। এখনও পর্যন্ত বিশ্বকাপের ইভেন্টে ভারতের বিপক্ষে এটি পাকিস্তানের প্রথম জয়। বড় ম্যাচ খেলার জন্য দুই দলেরই নিজস্ব পরিকল্পনা থাকবে।

বাবর আজম, মোহাম্মদ রিজওয়ান এবং শাহীন আফ্রিদি নামে তিনজন খেলোয়াড়ের জন্য বিশেষভাবে পরিকল্পনা করতে হবে ভারতকে। আসুন, এবার দেখে নেওয়া যাক পাকিস্তান কেন এই ম্যাচে হারাবে তার পিছনের তিনটি কারণ:

বাবর আজম-মোহাম্মদ রিজওয়ানের ওপেনিং জুটি
এই এশিয়া কাপে পাকিস্তানের অন্যতম সেরা ওপেনিং জুটি রয়েছে। মোহাম্মদ রিজওয়ানের সঙ্গে ওপেন করেন ক্যাপ্টেন বাবর আজম। তারা দুজনেই গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের ১৫১ রান তাড়া করেছিল এবং ম্যাচটি ১০ ​​উইকেটে জিতে নেয়।

দুই ব্যাটসম্যানই সমান স্বাচ্ছন্দ্যে পেস ও স্পিন খেলতে পারদর্শী। ভারতের খেলা জিততে হলে ওপেনিং জুটিকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আউট করতে হবে।

শাহীন আফ্রিদি ফ্যাক্টর
গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে ভারতের টপ অর্ডারকে শুরুতেই আউট করেছিলেন শাহীন আফ্রিদি। এশিয়া কাপেও সে চেষ্টা করতে পারেন তিনি।

ভারতের ওপেনিং ব্যাটিং অর্ডার এখনও ঠিক হয়নি। বিরাট কোহলির বর্তমান ফর্ম বিবেচনা করে আফ্রিদি একজন মারাত্মক বোলার হয়ে উঠেছেন।

রোহিত শর্মা এবং কেএল রাহুলও তাদের ইনিংসের শুরুতে শর্ট বলের বিরুদ্ধে অস্বস্তিকর দেখায়। তাই সব মিলিয়ে আফ্রিদির বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের।

একইরকমের প্রথম একাদশ
এই মুহুর্তে পাকিস্তানের অন্যতম সেরা একাদশ রয়েছে। তারা টুর্নামেন্টের জন্য ১৫ সদস্যের একটি দল বেছে নিয়েছে এবং তাদের মধ্যে অনেকেই দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন।

অন্যদিকে, সাম্প্রতিক সময়ে ভারত অনেক খেলোয়াড়কে প্রচুর সুযোগ দিয়েছে। আর এখন রাহুল ও কোহলির মতো অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের বাদ দিয়ে ফিরিয়ে আনা হয়েছে যারা একেবারেই ভালো ফর্মে নেই।

একইসঙ্গে ভারতে মাত্র ৩ জন ফাস্ট বোলার রয়েছে। এরই সঙ্গে জসপ্রীত বুমরাহ ও হর্ষাল প্যাটেলের মতো অভিজ্ঞ বোলাররাও চোটের জন্য দলের বাইরে।

[ad_2]

Leave a Reply