ADS বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: [email protected]

চরম দুঃসংবাদঃ ভারতীয় ২ তারকা ক্রিকেটারের এবার বিরাট রদবদল! কোহলি-জাদেজাদের নিয়ে কড়া সিদ্ধান্ত বোর্ডের!

চরম দুঃসংবাদঃ ভারতীয় ২ তারকা ক্রিকেটারের এবার বিরাট রদবদল! কোহলি-জাদেজাদের নিয়ে কড়া সিদ্ধান্ত বোর্ডের!

[ad_1]

আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপের পরেই ভারতীয় ক্রিকেটে ঘটে যাবে বিরাট রদবদল। দ্য বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া। ‘ট্রানজিশন প্ল্যান’ ছকে ফেলেছে ইতিমধ্যেই। যে সব সিনিয়র ক্রিকেটাররা তিন ফরম্যাটেই নিয়মিত, তাঁদের কাজের ধকল কমানোই লক্ষ্য সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় অ্যান্ড কোংয়ের।

যে রিপোর্ট সামনে আসছে তাতে করে মনে করা হচ্ছে যে, যদি পরিকল্পনা অনুযায়ী সব ঠিকঠাক না যায়, তাহলে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে কুড়ি ওভারের বিশ্বযুদ্ধের পরেই বিরাট কোহলি ও রবীন্দ্র জাদেজাকে বলা হবে ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম ফরম্যাট থেকে সরে আসার জন্য। বিসিসিআই এই দুই সুপারস্টার ক্রিকেটারকে বাকি দুই ফরম্যাটে চাইছে। যার মানে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সঙ্গে লাল বলের ক্রিকেটে কোহলি-জাদেজাকে ব্যবহার করা হবে।

এক স্পোর্টস ওয়েবসাইটে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বিসিসিআই-এর এক আধিকারিক বলেন, ‘দেখুন এটা নতুন কিছু নয়। প্রতিটি বড় ইভেন্টের পরেই ট্রানজিশন পিরিয়ড আসে। দেখুন গতবছর বিশ্বকাপের পর মহম্মদ শামিকে দুই ফরম্যাটেই ফোকাস করতে বলা হয়েছে। বিরাটের কিন্তু বয়স কমছে নাা। যে সংখ্যায় আমরা ম্যাচ খেলি, ওকে সেটা ম্যানেজ করতে হবে। আমরা বদলের কথা ভাবতেই পারি। জাদেজার ক্ষেত্রে ওর বারবার চোট পাওয়াটা আমাদের কাছে চিন্তার।

টি-২০ বিশ্বকাপের পরেই আমরা ট্রানজিশন প্ল্যান নিয়ে আলোচনা করব। বিরাট নিজে চাইবেন তিন ফরম্যাটেই খেলতে। কারণ ব্রেক-টাইমের জন্য চলতি বছর বিরাটের সেভাবে ক্রিকেট খেলা হয়নি। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-২০ বিশ্বকাপের পরেই ভারতের পুরোপুরি ফোকাস চলে যাবে পঞ্চাশ ওভারের ক্রিকেটে। কারণ ২০২৩ সালে ভারত আয়োজন করবে আইসিসি-র শো-পিস ইভেন্ট। দেখতে গেলে ১০ মাসের ওপর ভারত খেলবে ৫০ ওভারের ক্রিকেট। টি-২০ তখন আর ফোকাসে থাাকবে না।

এবার প্রশ্ন রোহিত কি ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত ভারতকে নেতৃত্ব দেবেন? এই প্রসঙ্গে বিসিসিআই কর্তা বলছেন, ‘রোহিত নিশ্চিত ভাবেই ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত ভারতের অধিনায়ক থাকবে। ওকে যখন অধিনায়কত্ব তুলে দেওয়া হয়, তখনই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, রোহিত তিন ফরম্যাটেই ভারতের অধিনায়ক থাকবে ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। একটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে রোহিতের বয়সও ছত্রিশের কাছাকাছি। দেশের জার্সিতে তিন রকমের ক্রিকেটে নেতৃত্ব দেওয়ার পাশাপাশি ও আইপিএলে মুম্বইকে নেতৃত্ব দেয়। ফলে ওর জন্য মুশকিল হবে।

বিরাটের এরকম কোনও বার্তা নেই যে, ও সরে দাঁড়াতে হবে। আমাদের কথা বলতে হবে। টি-২০ বিশ্বকাপের পরেই কথা হবে। এশিয়া কাপ থেকে বিদায়ের পরেও আমরা কোর দল নিয়ে আত্মবিশ্বাসী।’ বিসিসিআইয়ের পরিকল্পনায় একটি বিষয় স্পষ্ট যে, কোহলি-জাদেজাকে আর হয়তো টি-২০ বিশ্বকাপের পর দেশের জার্সিতে ২০ ওভারের ফরম্যাটে দেখা যাবে না।

[ad_2]

Leave a Reply