ADS বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: [email protected]

টি-টোয়েন্টিতে টানা ব্যর্থতার কারণেই আসন্ন বিশ্বকাপের আগেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে কে এল রাহুল

টি-টোয়েন্টিতে টানা ব্যর্থতার কারণেই আসন্ন বিশ্বকাপের আগেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে কে এল রাহুল

[ad_1]

ভারতীয় দল নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। বার বার ব্যর্থ হওয়ার পরেও কেন লোকেশ রাহুলকে খেলানো হচ্ছে? অন্য দিকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভাল বল করার পরেও কেন দলের বাইরে রবি বিষ্ণোই?

ন’মাস পরে ভারতের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমেছেন তিনি। পর পর চার ম্যাচে বড় রান করতে পারেননি। তার পরেও লাগাতার দলে সুযোগ পাচ্ছেন লোকেশ রাহুল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, জিম্বাবোয়ে, আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজে শুভমন গিল, ঈশান কিশন, ঋষভ পন্থ, সূর্যকুমার যাদবকে দিয়ে ওপেন করানো হয়েছে।

তা হলে কেন রাহুল দলে ফিরতেই তিনি ওপেনার? প্রশ্ন উঠছে। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ভারতের দল নির্বাচন নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সব থেকে সফল রবি বিষ্ণোইকেই বাদ দেওয়া হল পরের ম্যাচে। কেন?

এশিয়া কাপের আগে ২০২১ সালের ১৯ নভেম্বর শেষ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলেছিলেন রাহুল। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে রাঁচীতে করেছিলেন ৬৫ রান। তার পরে দীর্ঘ ন’মাস দলের বাইরে রাহুল।

এর মাঝে আইপিএলে লখনউ সুপার জায়ান্টসকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। আইপিএলে ৫১.৩৩ গড়ে ৬১৬ রান করেছেন। তার মধ্যে দু’টি শতরান রয়েছে। কিন্তু জাতীয় দলে সেই ছন্দ দেখাতে পারেননি ভারতের সহ-অধিনায়ক।

এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম বলে শূন্য রান করে আউট হয়েছেন রাহুল। দ্বিতীয় ম্যাচে হংকংয়ের বিরুদ্ধে ৩৯ বলে করেছেন ৩৬ রান।

সুপার ফোর-এর প্রথম ম্যাচে সেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধেই ২০ বলে ২৮ রান করেছেন রাহুল। মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সাত বলে ছয় রান করে সাজঘরে ফিরেছেন ভারতীয় ওপেনার।

বিশ্লেষক্বরা বলছেন টি-২০ বিশ্বকাপের আগেই দল থেকে অবসর নেওয়া উচিত রাহুলের। দলের তার চেয়ে অনেক বেশি প্রতিভাবান ক্রিকেটার রয়েছে। কি করবেন রাহুল?? অবশ্যই সিদ্ধান্ত তার নিজেকেই নিতে হবে।

তার এমন টানা ব্যর্থতা টানতে চাইছে না ম্যানেজমেন্ট। দল থেকে সম্মানের সাথে অবসর নেয়ায় প্রত্যেক ক্রিকেটারের উচিত।

[ad_2]

Leave a Reply