ADS বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: [email protected]

পৃথ্বী শ-র ঝোড়ো হাফ-সেঞ্চুরি ও কুলদীপ যাদবের হ্যাটট্রিকের সুবাদে নিউজিল্যান্ডকে উড়িয়ে সিরিজ জিতল ভারত

পৃথ্বী শ-র ঝোড়ো হাফ-সেঞ্চুরি ও কুলদীপ যাদবের হ্যাটট্রিকের সুবাদে নিউজিল্যান্ডকে উড়িয়ে সিরিজ জিতল ভারত

[ad_1]

পৃথ্বী শ-র ঝোড়ো হাফ-সেঞ্চুরি ও কুলদীপ যাদবের হ্যাটট্রিকের সুবাদে নিউজিল্যান্ড-এ দলের বিরুদ্ধে টেস্টের পরে ওয়ান ডে সিরিজও জিতল ভারত।

পিচে বোলারদের জন্য সাহায্য ছিল সন্দেহ নেই। দু’দলের ব্যাটসম্যানদেরই যেখানে রান করার জন্য ঘাম ঝরাতে হয়, সেখানে বোলারদের গা গরম হওয়ার আগেই হাফ-সেঞ্চুরি করে ফেলেন পৃথ্বী শ।

বোলারদের রামরাজত্বে বীরেন্দ্র সহওয়াগের ঘরানারা মারকাটারি ক্রিকেট উপহার দেন পৃথ্বী। তার আগে কুলদীপ যাদব হ্যাটট্রিক করে নজর কাড়েন ভারতের হয়ে।

কুলদীপ ও পৃথ্বীর এই যুগলবন্দিতেই সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ান ডে ম্যাচে নিউজিল্যান্ড-এ দলকে ৪ উইকেটে পরাজিত করে ভারতীয়-এ দল। সেই সুবাদে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই তিন ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজ জয় নিশ্চিত করেন সঞ্জু স্যামসনরা।

উল্লেখ্য, এর আগে তিন ম্যাচের বেসরকারি টেস্ট সিরিজও ভারত ১-০ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে। টেস্ট ও ওয়ান ডে মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত সফরের ৫টি ম্যাচের মধ্যে নিউজিল্যান্ড-এ দলকে হারতে হয় ৩টি ম্যাচে।

ড্র হয় ২টি টেস্টে। বাকি রয়েছে নিয়মরক্ষার তৃতীয় ওয়ান ডে ম্যাচটি। সেটিতে জিততে না পারলে কিউয়িদের খালি হাতেই দেশে ফিরতে হবে।

চেন্নাইয়ে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ান ডে ম্যাচে টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নামে নিউজিল্যান্ড। তারা ৪৭ ওভারে ২১৯ রানে অল-আউট হয়ে যায়। জো কার্টার ৮০ বলে ৭২ রান করেন। ৬৫ বলে ৬১ রান করেন রাচিন রবীন্দ্র। বাকিদের মধ্যে বলার মতো রান বলতে সিয়ান সলিয়ার ২৮।

কুলদীপ যাদব ৫১ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নেন। ৪৭তম ওভারের চতুর্থ, পঞ্চম ও ষষ্ঠ বলে যথাক্রমে লগান ভ্যান বিক, জো ওয়াকার ও জেকব ডাফিকে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন কুলদীপ। এছাড়া ২টি করে উইকেট নেন রাহুল চাহার ও ঋষি ধাওয়ান। ১টি করে উইকেট দখল করেন উমরান মালিক ও রাজ বাওয়া।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৩৪ ওভারে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ২২২ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। ১১টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে ৪৮ বলে ৭৭ রানের মারকাটারি ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন পৃথ্বী। তিনি ব্যক্তিগত হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ৬টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে মাত্র ২৬ বলে।

এছাড়া রুতুরাজ গায়কোয়াড় ৩০, রজত পতিদার ২০, সঞ্জু স্যামসন ৩৭, ঋষি ধাওয়ান অপরাজিত ২২ ও শার্দুল ঠাকুর অপরাজিত ২৫ রান করেন। খাতা খুলতে পারেননি রাজ বাওয়া ও তিলক বর্মা। ৩টি উইকেট নেন লগান ভ্যান বিক ও ২টি উইকেট দখল করেন জেকব ডাফি।

[ad_2]

Leave a Reply