ADS বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: [email protected]

ভারতীয় মালিকানার দল, খেলবে না ভারতীয়রাই, নীতিতে শক্ত অবস্থানে আছে বিসিসিআই

ভারতীয় মালিকানার দল, খেলবে না ভারতীয়রাই, নীতিতে শক্ত অবস্থানে আছে বিসিসিআই

[ad_1]

আগেও দুইবার ফ্র্যাঞ্চাইজি টি–টোয়েন্টি লিগ আয়োজনের চেষ্টা করেছিল ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা । তবে নানা জটিলতায় তা করতে পারেনি। এবার তাই আরও আটঘাঁট বেঁধে নেমেছে সিএসএ।

সবকিছু মোটামুটি ঠিকঠাক, চূড়ান্ত হয়ে গেছে ছয় ফ্র্যাঞ্চাইজি, শীর্ষ খেলোয়াড়দের নামও ঘোষণা করেছে একাধিক দল। আগামী বছরের জানুয়ারি–ফেব্রুয়ারিতে টুর্নামেন্ট শুরু করার সিদ্ধান্তও পাকা।

লিগ শুরুর আগে বড় কাজ বলতে বাকি শুধু নিলাম আয়োজন। লিগ আয়োজনে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড ও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক খুব ভালো। যে কারণে ভারতীয় ক্রিকেটাররা সিএসএর টি–টোয়েন্টি লিগ খেলার অনুমতি পেতে পারেন বলে একটা সম্ভাবনা জেগেছিল। তবে শেষ পর্যন্ত তা আর হচ্ছে না।

এখনো নাম চূড়ান্ত না হওয়া লিগটির কমিশনারের দায়িত্বে আছেন সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথ। তিনিই জানিয়ে দিয়েছেন, সিএসএর টি–টোয়েন্টি লিগে ভারতের খেলোয়াড় থাকছেন না, ‘বিসিসিআইয়ের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ভালো, তারা লিগ আয়োজনে সহায়তাও করছে। তবে চুক্তিবদ্ধ কোনো ক্রিকেটারকে তারা আইপিএলের বাইরে বিদেশি লিগের জন্য ছাড়বে না।’

আগে থেকেই আইপিএলের বাইরে কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে খেলোয়াড়দের ছাড়পত্র দেয় না বিসিসিআই। তবে সিএসএর লিগের সব কটি দলেরই মালিকানা আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকদের বলেই এই সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হচ্ছিল। জোহানেসবার্গ সুপার কিংসকে চেন্নাই সুপার কিংস, কেপ টাউনকে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স, ডারবানকে লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্টস, ইস্টার্ন ক্যাপেকে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ, পার্ল রয়্যালসকে রাজস্থান রয়্যালস এবং প্রিটোরিয়া ক্যাপিটালসকে দিল্লি ক্যাপিটালস কিনে নিয়েছে।

এরই মধ্যে ছয়টি দলই এক বা একাধিক ক্রিকেটারকে দলভুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে। কেপটাউন কাগিসো রাবাদা, রশিদ খান ও স্যাম কারেনকে দলে নিয়েছে, জোহানেসবার্গ ফাফ ডু প্লেসি, মঈন আলী ও মাহিশ থিকশানাকে, পার্ল রয়্যালস জশ বাটলার ও ডেভিড মিলারকে, প্রিটোরিয়া অ্যানরিখ নর্কিয়া ও মিগায়েল প্রিটোরিয়াসকে, সানরাইজার্স ইস্টার্ন ক্যাপে এইডেন মার্করামকে এবং ডারবান কুইন্টন ডি কক ও জেসন হোল্ডারকে।

প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজি স্কোয়াডে মোট ১৭ জন খেলোয়াড় দলে নিতে পারবে, নিলামের আগে নিতে পারবে ৫ জনকে। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে নিলাম আয়োজনের লক্ষ্যে এগোচ্ছে ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা। ফ্র্যাঞ্চাইজি টি–টোয়েন্টি আয়োজন করে এমন দেশগুলোর মধ্যে নিয়মিতভাবে নিলাম হয় কেবল ভারতের আইপিএলে। দ্বিতীয় লিগ হিসেবে যা চালু করতে যাচ্ছে সিএসএ।

তবে বছরের যে সময়টিতে সিএসএর লিগ হবে, একই সময়ে আগে থেকেই ফ্রাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট আয়োজন করে থাকে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাতও। ক্রিকেটারদের নিয়ে তাই কাড়াকাড়ি একটু হবেই।

[ad_2]

Leave a Reply